১৭ মে ২০২১ স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মহোদয়ের একান্ত সচিবের অনুপস্থিতিতে তার কক্ষে প্রথম আলো পত্রিকার সিনিয়র অনুসন্ধানী সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম প্রবেশ করে সরকারী মূল্যবান গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রাদি বা ডকুমেন্টসের ছবি মোবাইলে ধারণ করেন বলে অভিযুক্ত হয়েছেন যা আইনত দন্ডনীয়।

জানা যায়,স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের ঐ কক্ষে রোজীনা ইসলাম যখন কাগজপত্রাদি হস্তগত ও বিভিন্ন ডকুমেন্টস এর ছবি তুলছিলেন তখন সচিব মহোদয়ের দপ্তরে কর্মরত পুলিশ সদস্য মিজানুর রহমান দেখতে পান এবং তাকে বাধা প্রদান করেন। পরবর্তীতে অতিরিক্ত সচিব জেবুন্নেসা, উপসচিব জাকিয়া পারভীন, সিনিয়র সহকারী সচিব শারমিন সুলতানা, সচিবের একান্ত সচিব সাইফুল ইসলাম ভুইয়াসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও স্টাফ ঘটনাস্থলে আসলে অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেসা বেগম রোজীনাকে তল্লাশী করে তার কাছ থেকে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র এবং ডকুমেন্টস এর ছবি সম্বলিত মোবাইল উদ্ধার করেন। ঐসময় রোজীনা ইসলাম বারবার স্বীকার করেন যে, তিনি ভুল করেছেন এবং উক্ত ভুলের জন্য তিনি মুচলেকা দিয়ে মুক্ত হতে চান এবং স্বাস্থ্য সচিবের কাছে মাফ চান, যা ফাঁস হওয়া হওয়া একটি ভিডিওতে আমরা দেখতে পাই….

উল্লেখ্য এর পূর্বেও রোজিনা ইসলাম রাষ্ট্রীয় নথি চুরি করতে গিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পেয়েছিলেন। বিস্তারিত দেখুন ভিডিও তেঃ

comments