জঙ্গি তৎপরতায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করলেন খালেদা!

0
1

দেশের সাম্প্রতিক জঙ্গি তৎপরতাকে একদলীয় দুঃশাসনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার অংশ বলে মন্তব্য করে নিজ দলের দিকেই তীর ছুড়ে দিলেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, জঙ্গি তৎপরতা বেশ জোরে সোরে বেড়েছে দেশে, আওয়ামীলীগ চাইলেও দেশ থেকে জঙ্গি দূর করতে পারবে না। বিএনপি নেত্রী একথা বলে কি বুঝাতে চেয়েছেন? এই কথা বলে কি তিনি তাঁর আমলের জঙ্গিবাদের কথা উল্লেখ করলেন, নাকি আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পর প্রচন্ড ভাবে জঙ্গিবাদ সৃষ্টি ও পেট্রল সন্ত্রাসের কথা স্বীকার করলেন!
আওয়ামীলীগ সরকার দেশ থেকে জঙ্গিবাদ মুছে ফেলার পরও এমন মন্তব্য করে তিনি নিজের শংকীর্ন মানসীকতারই পরিচয় দিয়েছেন এমন মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ডাঃ ফারুক হোসেন। বাংলাদেশ টাইমসের প্রতিবেদকের সঙ্গে কথার এক পর্যায়ে তিনি বলেন, খালেদা জিয়া তাঁর বিবৃতিতে পরক্ষ ভাবে সরকারকে চাপে ফেলার হুমকিই দিচ্ছেন বলে আমার মনে হয়, নয়ত তিনি কেন উল্লেখ করবেন আওয়ামীলীগ চাইলেও দেশ থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূল করতে পারবে না।

খালেদার এমন বিবৃতির পর নিজ দলের নেতারা শুরু করেছে সমালোচনা। বিএনপির একাধিক নেতার সাথে এই বিষয়ে কথা বলতে চাইলে তাঁরা প্রায় সবাই একই কথা বলেন। তাঁরা বলেন, এই বিবৃতি ম্যাডাম দেননি এটা অন্য কেউ লিখে দিয়েছেন, এমন মন্তব্য করে নিজ ক্ষমতার আমলের জঙ্গি থাকার কথাই স্বীকার করা হয়। ম্যাডাম যদি এটা দিয়ে থাকেন তাহলে দলের জন্য এটা হবে আত্মঘাতি বিবৃতি।

উল্লেক্ষ্য, ২০০১- ২০০৫ বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে সৃষ্টি হয় জেএমবি নামের জঙ্গি সংগঠন। এরা একযোগে সারাদেশে বোমা হামলা চালায়। পরবর্তিতে তদন্তে বের হয়ে এসেছে যে, এই জঙ্গি সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলো বিএনপির বেশ কিছু সিনিয়র নেতা। এর মধ্যে উল্লেখতম হচ্ছে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও সাবেক সরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বাবর এবং জামায়াতের সাবেক আমির মতিউর রহমান নিজামি

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here