বিএনপির জন্য ইসরাইলের আহাজারি!

0
3

রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে গ্রেফতার বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব আসলাম চৌধুরী গ্রেফতার হওয়ার পরে ইসরাইলের গণমাধ্যমে এই ঘটনাকে বিরোধী দলের উপর নিপীড়ন হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।

জেরুজালেম অনলাইনে মতামত বিভাগে রাসেল আব্রাহাম নামের একজন কলাম লিখে বাংলাদেশের বিরোধী দলগুলো সরকারের রোষানলের মধ্যে আছে এবং সংখ্যালঘুরা নির্যাতনের স্বীকার এমন অভিযোগও করেছেন তিনি তার কলামে।

ইজরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের এজেন্ট এবং লিকুদ পার্টির নেতা মেন্দি এন সাফান্দি তার ফেসবুক আইডিতে ওই কলাম শেয়ারও করেছেন। জেরুজালেম অনলাইনে বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিশাল একটি ছবিসহ সেই কলামটি প্রকাশ করা হয়।

ওই মতামতে আব্রাহাম লিখেছেন, ‘মোসাদের সাথে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার অভিযোগে বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এইটা বাংলাদেশে হিন্দু সম্প্রদায় এবং বিভিন্ন মানবাধিকার কর্মীর উপর নির্যাতনের একটি ধারবাহিকতারই প্রকাশ’।

গত জানুয়ারীতে প্রকাশিত জেরুজালেম অনলাইনের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল বাংলাদেশ সরকারের ক্ষমতা এমন একটা দলের কাছে স্থানাতর করা হবে যারা হিন্দুদের স্বার্থ দেখবে এবং ইসরাইলের সাথে কূটনীতিক সম্পর্ক স্থাপন করবে।

চলতি বছরের মার্চের প্রথম দিকে বিএনপির জাতীয় কাউন্সিলের আগে ভারতে ইসরাইলি নাগরিক মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে বৈঠক করেন বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা স্বীকার করেছেন বিএনপি হাই কমান্ডকে আসলাম বোঝাতে সক্ষম হয়েছিল ইসরাইল এবং তাদের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ বর্তমান সরকারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করতে সর্বাত্মক সাহায্য করবে। তারই বিনিময়ে আসলাম চৌধুরীকে পুরস্কার স্বরুপ বিএনপির কেন্দ্রে গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হয়।

ইসরাইলের রাজনৈতিক এবং মোসাদ এজেন্ট মেন্দির সঙ্গে বৈঠকের বিষয়টা ফাঁস হয়ে গেলে বিএনপি বিবৃতকর অবস্থার মধ্যে পড়ে। রাজনীতিতে অনেকটা কোণঠাসা অবস্থার মধ্যে থাকা বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরী গ্রেফতার হওয়ার পরে বিএনপিতে নতুন করে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। নতুন আরো অনেকের নাম চলে আসার ভয়ে রয়েছে দলটি। অনেকের আশংকা দেশের বাইরে থেকে আসলাম চৌধুরী বিশেষ নির্দেশপ্রাপ্ত হয়েছেন বলেই এই কাজে পা বাড়িয়েছেন।

বিএনপির এই দুর্যোগকালীন সময়ে প্রকৃত বন্ধুর মত পাশে দাঁড়িয়েছে ইসরাইলের গণমাধ্যমও। তারা বাংলাদেশ সম্পর্কিত খবর এবং মতামত লিখে বিশ্ব জনমত গঠনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলেও স্বীকার করেছে। বাংলাদেশে গণতন্ত্র ও সুশাসন নেই এবং এখানে সংখ্যালঘুরা নিরাপদ নয় বলছে ইসরাইলের গণমাধ্যম।

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা এবং মুসলিম বিশ্বের সংহতির জন্য বাংলাদেশ ইসরাইলের সঙ্গে কোন প্রকার সম্পর্ক গড়ে তুলেনি স্বাধীনতার সাড়ে চার দশকেও। বাংলাদেশের ডানপন্থী দল হিসেবে পরিচিত বিএনপি বরাবরই নিজ স্বার্থ এবং ক্ষমতার রাজনীতিতে টিকে থাকতে অসাধু পন্থা আবলম্বন করেছে এমন উদারণ বহু আছে।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here