প্রতি বছরের ন্যয় শুরু হয়ে গেছে চাঁদা তুলে বিএনপির ইফতার রাজনীতি, অন্যদিকে অসহায় মানুষের পাশে আওয়ামী লীগ

0
105
ইফতার

রমজানের প্রথম দিনেই নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করে দিয়েছে বড় রাজনৈতিক দুই দল। বরাবরের মতো এবারও কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত নানা স্তরে ইফতার পার্টির আয়োজন করছে বিএনপি। যার শুরুটা হয়েছে প্রথম রোজা থেকেই। অন্যদিকে প্রতিবারের মতো এবারো ইফতার সামগ্রী নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। দলটি পুরো রোজায় ঢাকা ও ঢাকার বাইরে দরিদ্রদের মধ্যে ইফতারসামগ্রী বিতরণ করবে। রোজার শেষ সপ্তাহে ঈদসামগ্রীও বিতরণ করা হবে।

অন্যদিকে ইফতার পার্টি অব্যাহত থাকবে উল্লেখ করে বিএনপির ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক আবদুস সালাম ও উত্তরের সদস্য সচিব আমিনুল হক জানিয়েছেন, এবার ঢাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে ইফতার আয়োজন করা হবে।

ঠিক বিপরীত দিকে অসহায়-ছিন্নমূল ও গরীব মানুষের কথা চিন্তা করে গতবারের মতো এবারো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি বাসভবন গণভবনে কোনো ইফতারের আয়োজন না করার কথা রোজা শুরুর আগেই জানিয়েছেন। একইসঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ইফতার মাহফিল না করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। দলীয়প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আওয়ামী লীগ এবার তৃণমূল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত কোথাও ইফতার মাহফিল না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে ইফতার আয়োজনের সকল অর্থ অসহায়-গরিব মানুষের মাঝে সহায়তা হিসেবে প্রদান করবে।

[প্রতি বছরের ন্যয় শুরু হয়ে গেছে চাঁদা তুলে বিএনপির ইফতার রাজনীতি, অন্যদিকে অসহায় মানুষের পাশে আওয়ামী লীগ]

শুধু তাই নয়, পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষ্যে ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার বাসিন্দাদের জন্য ত্রাণ হিসেবে খাদ্য ও চিকিৎসা সামগ্রী পাঠিয়েছে বাংলাদেশ।

ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়ানোতো দূরে থাক খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকার পরেও বিএনপি ইফতার পার্টি শুরু করে দিয়েছে। মঙ্গলবার রোজা শুরুর দিনেই কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত নানা স্তরে পাঁচশ’র বেশি ইফতার আয়োজন করেছে বিএনপি। গতকাল বিএনপি ইফতার পার্টি করেছে লেডিস ক্লাবে। আগামী ৩০ রোজা পর্যন্ত এই ইফতার পার্টি চলবে বলে বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন।

অথচ গত ১১ মার্চ এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাস বলেছিলেন, ‘আওয়ামী লীগ জনগণের জন্য সস্তা খাবার বরাদ্দ রেখে নিজেরা ‘দামি ফল, খেজুর, আঙুর’ খাবে।’ আর বাস্তবতা হলো, ঢাকার ইস্কাটন লেডিস ক্লাবে বিএনপির ইফতার পার্টিতেই দেখা মিললো দামী খেজুরের।

বিএনপির নেতারা বলছিলেন যে, বেগম খালেদা জিয়া অসুস্থ। এরকম অসুস্থ অবস্থা নিয়ে বিএনপি উদ্বিগ্ন। পরিবারের একজন জ্যেষ্ঠ সদস্য যখন অসুস্থ থাকে তখন পরিবারের অন্য সদস্যরা কি উৎসব করে? বিএনপি তাহলে নিজেরাই কি স্ববিরোধীতা করছে না?

[প্রতি বছরের ন্যয় শুরু হয়ে গেছে চাঁদা তুলে বিএনপির ইফতার রাজনীতি, অন্যদিকে অসহায় মানুষের পাশে আওয়ামী লীগ]

লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের টাকার দরকার। আর তাই এই ইফতার পার্টির নাটক সাজানো হয়েছে। ইফতার পার্টির মাধ্যমে বিএনপি শুরু করেছে নতুন করে চাঁদাবাজি। বিএনপির নেতৃবৃন্দ ইফতার পার্টি উপলক্ষ্যে বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা নিচ্ছে। ইফতার যেহেতু একটি ইসলামিক কর্মসূচি এ কারণে অনেক ব্যবসায়ীও বিএনপিকে এই কাজের জন্য চাঁদা দিচ্ছেন এবং এই চাঁদার একটি বড় অংশ চলে যাচ্ছে লন্ডনে। বাকি অংশ দিয়ে এখানে ইফতারের মহোৎসব করা হচ্ছে।

কদিন আগে বিএনপি নেতারাই বলছিলেন যে, তাদের হাজার হাজার নেতাকর্মী গ্রেপ্তার, মানবেতর জীবনযাপন করছেন, অনেকে খেতে পারছেন না। বিএনপি যদি সত্যি সত্যি মনে করে যে, তাদের নেতারা প্রচণ্ড কষ্টে আছেন তাহলে এই জাঁকজমকের ইফতার পার্টি কেন?

আরও পড়ুনঃ

নিজের রাজনৈতিক ব্যর্থতা ঢাকতে দলের নেতাদের বলির বকরা বানাচ্ছেন তারেক!

হাল ভেঙে দিশেহারা, চরম সংকটে বিএনপি

জাতীয় পার্টি হতে বিএনপির আর বাকি মাত্র ছয় মাস

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here