জাতিসংঘে বাংলাদেশী শান্তিরক্ষীদের গৌরব ম্লান করতেই সক্রিয় দেশবিরোধী চক্র

0
4138

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নিত্যনতুন উপায়ে দেশের অভ্যন্তরে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালাচ্ছে দেশ বিরোধী অপশক্তি। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে কয়েক দশক ধরে গৌরবের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে আসছেন বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা। বর্তমানে শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী দেশ হিসেবে শীর্ষে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। সর্বশেষ ২০২০ সালেও ৬,৭৩১ জন শান্তিরক্ষী পাঠানোর মধ্য দিয়ে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে শান্তিরক্ষী পাঠানো দেশ হিসেবে প্রথম হয় বাংলাদেশ। সঙ্গে সেনাবাহিনীরমেজর জেনারেল মো. মাঈন উল্লাহ চৌধুরী দক্ষিণ সুদানে শান্তিরক্ষা মিশনের ডেপুটি ফোর্স কমান্ডার নির্বাচিত হন।

জাতিসংঘে বাংলাদেশের এমন সুনাম থাকায় আঁতে ঘাঁ লাগে দেশ বিরোধী চক্রের। ইতোমধ্যে ষড়যন্ত্রকারীদের নিজস্ব অর্থায়নে পরিচালিত ১২টি বেনামি সংস্থাকে ব্যবহার করে দেশের সুনাম বিনষ্টে শান্তিরক্ষা মিশনে র‍্যাব নিষিদ্ধে দাবি জানানো হয়েছে। যা নিতান্তই উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ষড়যন্ত্রমূলক কর্মকাণ্ড বলে স্পষ্টভাবে প্রতীয়মান হয় বলেই মনে করছেন কূটনৈতিক বিশ্লেষকরা।জাতিসংঘের সেক্রেটারি জেনারেল জ্যাঁ পিয়েরে ল্যাকরোইক্স জানান, যে কেউ চাইলেই জাতিসংঘে চিঠি প্রদান করতে পারে। তার মানে এই নয় যে, সেই চিঠি আমলে নিয়ে জাতিসংঘ কাজ শুরু করে দেবে। নির্দিষ্ট এজেন্ডা বাস্তবায়নে পৃথিবীতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে হাজারো সংস্থা। সব সংস্থাই চাইলে চিঠি দিতে পারে। সে বিষয়ে নিরীক্ষা করে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করার দায়িত্ব জাতিসংঘের। তবে বেনামি কোনো সংস্থা নিজেদের স্বার্থ রক্ষায় কোনো প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রোণদিত ষড়যন্ত্র করলে, সেই সংস্থার বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here