তৈমুর আলমের পর এবার গয়েশ্বরের পালা!

0
5266
তৈমুর

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে লড়ছেন তৈমুর আলম খন্দকার। এজন্য ইতিমধ্যে তাকে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক পদ থেকে প্রত্যাহার করেছে কেন্দ্রীয় বিএনপি। সেখানে ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম রবিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

দীর্ঘ ৩৩ বছর যাবত বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত এমন এক প্রভাবশালী নেতাকে এইভাবে দল থেকে বাদ দেয়ায় তারেক রহমান ও মির্জা ফখরুলের ওপর চটেছেন স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। আর এ কারণে তাকেও দল থেকে বহিস্কার করা হতে পারে বলে গুঞ্জন উঠেছে।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় দলীয় মিটিংয়ে জনপ্রিয় নেতা তৈমুর আলমকে বহিস্কারের প্রেক্ষিতে বলেন, বিএনপি এমনিতেই সংকুচিত। এরপর এমন প্রভাবশালী নেতাকে দল থেকে সরিয়ে দেয়া হচ্ছে, এটা সিনিয়র নেতাদের জন্য উদ্বেগের বিষয়। যারা এসব করছে, তারা দলের ভালো চায় না। ফলে তৈমুরকে যারা বহিস্কার করেছে, তাদেরই উচিত বিএনপি থেকে সরে যাওয়া।

তার এই বক্তব্য পৌঁছে গেলে সুদূর লন্ডনেও। আর তাতে খুব একটা ভালো প্রতিক্রিয়া যে পাওয়া যায়নি, বলাই বাহুল্য। তাই গয়েশ্বরের ভাগ্যও মঞ্জু বা তৈমুরের মত হতে যাচ্ছে বলে দলের অনেক নেতাই ধারণা করছেন।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির অপর সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, ইদানীং কিছু নেতা বিএনপির নেতৃত্বে পরিবর্তন চাচ্ছেন। তারা চাইছেন না বিএনপির নেতৃত্বে তারেক রহমান এবং মির্জা ফখরুল সাহেবরা থাকুক। তবে এই অভিযোগে কিন্তু কাউকে বহিস্কার করা হয়নি।

যদি কাউকে বহিস্কার করা হয়, সেটা শুধুমাত্র শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণে। আর কেউ যদি দলের সিনিয়র ভারপ্রাপ্ত (পলাতক) চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের পরিবর্তন চান, তিনি কখনই বিএনপির সমর্থক হতে পারে না। এটাও মাথায় রাখতে হবে।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, দলের শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণ হয়ে দাঁড়ালে কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। তিনি কত বছর বিএনপির রাজনীতি করছেন, সেটাও দেখা হবে না।

উল্লেখ্য, এর আগে তারেক রহমান ও মির্জা ফখরুলের পদত্যাগ চাওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের তৃণমূল বিএনপির ৪৪ নেতাকে বহিস্কার করা হয়েছিলো।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here