নয় মাস পাকিস্তানিদের আদর-যত্নে থাকা খালেদা কীভাবে মুক্তিযোদ্ধা হন?

0
4270
খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্তিযোদ্ধা বলায় দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে চ্যালেঞ্জ করে আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা ও সাবেক মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম বলেন, মির্জা ফখরুল বলেছেন- খালেদা জিয়া দেশের প্রথম মুক্তিযোদ্ধা। তাও আবার নাকি প্রথম মহিলা মুক্তিযোদ্ধা। মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এতো বড় মিথ্যা কথা, একজন কীভাবে বলতে পারে!

আজ মির্জা ফখরুলকে চ্যালেঞ্জ করে বলতে চাই- আপনি মির্জা ফখরুল বলেন, দীর্ঘ ৯ মাস খালেদা জিয়া কোথায় যুদ্ধ করেছেন! তার কমান্ডার কে ছিলেন! দেশের কোথায় খালেদা যুদ্ধ করেছেন! একজন অমুক্তিযোদ্ধাকে আপনি মুক্তিযোদ্ধার সার্টিফিকেট দিলেন। এটা বাংলার মুক্তিযোদ্ধারা কখনো মেনে নিতে পারে না। এই মিথ্যাচারের জন্য আপনাকে (মির্জা ফখরুল) বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।

মায়া বীর বিক্রম বলেন, যুদ্ধের সময় খালেদা জিয়া ৯ মাস ক্যান্টনমেন্টে পাকিস্থানি হানাদার বাহিনীর হেফাজতে ছিলেন। সেখানে নিয়াজি-টিক্কা খানদের আদরে আরাম-আয়াশে ছিলেন। অথচ আজ বিএনপি বলে খালেদা জিয়া নাকি দেশের প্রথম মহিলা মুক্তিযোদ্ধা। এটা মিথ্যা কথা।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি রাজাকার, আলবদর, আলশামস ও যুদ্ধাপরাধীদের মন্ত্রী বানিয়েছিল। তিনি তাদের মন্ত্রী বানিয়ে বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের অপমানিত করেছেন। আর আজ মির্জা ফখরুল সাহেব খালেদাকে মুক্তিযোদ্ধা বানালেন।

আওয়ামী লীগের এই প্রবীণ নেতা বলেন, বিএনপি-খালেদা জিয়ারা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করার জন্য ১৯ বার হত্যা চেষ্টা করেছে। শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের হত্যা করার জন্য ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা ঘটিয়েছিল। তাদের টার্গেট ছিল স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি যেন আর কোনো দিন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসতে না পারে। এই নীল নকশা নিয়ে একবার- দুই বার নয়, ১৯ বার জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টা করেছেন। কিন্তু আল্লাহর রহমতে শেখ হাসিনা আজ বেঁচে আছেন।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি বুঝতে পেরেছে- আগুন, সন্ত্রাস, হত্যা, গুম, খুন ও মারামরি করে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে সরানো যায় না। তাই তারা (বিএনপি) খালেদার জিয়ার চিকিৎসার নামে দেশের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করতে চায়। অথচ সাজাপ্রাপ্ত আসামি খালেদা জিয়াকে বাসায় থেকে চিকিৎসা সেবা নেয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। খালেদার জিয়ার চিকিৎসা সেবা দিতে দিতে বিদেশ নেয়ার নামে বিএনপি নাটক এ দেশের মানুষ মানতে চায় না। মানবেও না।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here