ঢাকা শহর কি তারেকের মতো সন্ত্রাসীর হাতে ছেড়ে দেবেন?

0
4

ঢাকা সিটি নির্বাচনের জন্য উত্তরে সাবেক মেয়র খোকা পুত্র ইশরাক হোসেন এবং দক্ষিণে প্যারাডাইস পেপারস কেলংকারি খ্যাত আব্দুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়াল বিএনপি থেকে মনোনয়ন পেয়েছে। বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের কর্ম জীবন শুধু লজ্জারই না ঘৃনারও বটে। ২০১৬ সালে পানামা পেপার্স কেলেঙ্কারি থেকে শুরু করে ২০১৭ সালে প্যারাডাইস পেপারস কেলেঙ্কারিতেও নাম এসেছে বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও তার পরিবারের।

কর ফাঁকি দিয়ে বেনামে সম্পদের পাহাড় গড়তে, আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে দেশ লুটের টাকা বিদেশে পাঠাতে এবং অবৈধ আয়ের টাকায় ‘বৈধ’ ক্ষমতার মালিক হতে গোপনে অফশোর কোম্পানির মাধ্যমে বিপুল অংকের টাকা বিনিয়োগ করেছিল বিএনপির এই মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল।

একটি সূত্র থেকে জানা গেছে, খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়ালের বিদেশে বিনিয়োগ করা সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার। অপরদিকে, বিএনপির দক্ষিণের মেয়র প্রার্থী ইশরাকের বিরুদ্ধে ঢাকার বিশেষ জজ আদালতে (৪) একটি দুর্নীতির মামলা বিচারাধীন। বিএনপির দুটি প্রার্থীই আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত দূর্নীতিবাজ।

বাংলাদেশ থেকে প্রতি বছর প্রচুর অর্থ বিভিন্ন দেশে পাচারের অভিযোগ রয়েছে। গরীবদের এ অর্থ পাচারের সুযোগ নেই। তাদের তো আর সুইস ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট থাকে না! অঢেল অর্থ থাকলে কর ফাঁকি দেওয়ার জন্য বারমুডা যে স্বর্গরাজ্য, সে তথ্যও তাদের অজানা। কিন্তু বিএনপি নেতা ও শেভরন কোম্পানির বাংলাদেশি এজেন্ট আবদুল আউয়াল মিন্টু এবং তার পরিবারের সদস্যদের সেটা ভাল করেই জানা।

বিপুল সম্পদের মালিক এই তাবিথ আউয়াল পরিবার বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন তারেক জিয়ার এই বিলাসী জীবনের সকল সুযোগ করে দিয়েছেন। এই বিলাসী জীবন চিরস্থায়ী করতেই বিএনপির সিনিয়র সকল নেতাদের অসম্মতিতেও তাবিথ আউয়ালকে মনোনয়ন দিয়েছে তারেক জিয়া। সম্প্রতি তাবিথের মনোনয়নের জন্য তারেক জিয়াকে নগদ সাড়ে ৩ কোটি টাকা ও লন্ডনের অভিজাত এলাকায় একটি বিশাল বিলাসবহুল বাংলো উপহার দিয়েছেন।

জাতীয় সংসদ বা স্থানীয় সংস্থার নির্বাচনে প্রার্থীরা হলফনামা দেয়। আয়-ব্যয়ের হিসাব, মামলা-মোকদ্দমা আছে কিনা, জেল খেটেছে কীনা- এসব জানাতে হয় লিখিতভাবে। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল কি প্যারাডাইস দুর্নীতিতে তার নাম থাকার বিষয়টি উল্লেখ করেছে? তদুপরি তাবিথ আউয়ালের পিতা এ তালিকায় তার ও পরিবারের সদস্যদের নাম থাকার বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন।

২০১৪ সালে বিএনপি নির্বাচন বর্জন করে পেট্রোল বোমা দিয়ে ১০০ দিনের জ্বালাও-পোড়াও সন্ত্রাস শুরু করে। এই আগুন সন্ত্রাসে প্রধান অর্থ যোগানদাতা ছিলেন বিএনপি প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও আব্দুল আউয়াল মিন্টু। এ নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় সে সময় খবর ছাপা হওয়ায় তারা বেশ সমালোচনার শিকার হয়।

অন্যদিকে, সাদেক হোসেন খোকা তার জীবদ্দশায় খালেদা জিয়ার বিলাসী জীবনের ভরণপোষণ থেকে শুরু করে পরবর্তীকালে হাওয়া ভবনে তারেক জিয়াকে প্রতিটি কাজের ভাগ পাঠাতো। এমনকি তারেক জিয়া লন্ডনে বসে বাংলাদেশ বিরোধী যতো যড়যন্ত্র করেছে তার অর্থ যোগানদাতা ছিলেন দক্ষিণের বিএনপি মেয়র প্রার্থী ইশরাকের হোসেনের বাবা সাদেক হোসেন খোকা।

তারেক জিয়া এই অনভিজ্ঞ দুই প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে, তাদের এই নগর পরিচালনার কোন অভিজ্ঞতাই নেই এবং তারেক জিয়া তাদের পরামর্শ দিয়ে দেশকে আবার অস্থিতিশীল, সন্ত্রাসে ভরপুর একটি শহরে পরিণত করার পায়তারা করবে। এখন আপনারাই চিন্তা করুন, তারেক জিয়া কে কি আপনি আপনার সুপরিকল্পিত মেগা সিটি তারেক জিয়ার হাতে ছেড়ে দিবেন?

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here